কুবিতে ছাত্রদলের পোস্টারিং, ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২৯, ২০২০, ৭:৩৫ অপরাহ্ন / ৯৪
কুবিতে ছাত্রদলের পোস্টারিং, ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ

কুবি প্রতিনিধি:

রাজনীতিমুক্ত কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে পোস্টারিং করেছে কুবি শাখা ছাত্রদল। তবে পোস্টারিংয়ের ঘন্টাখানেক বাদেই উধাও হয়ে গেছে সেসব পোস্টার। ছাত্রদলের অভিযোগ এসব পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

গতকাল ২৮ ডিসেম্বর (সোমবার) এসব পোস্টারিং করে সংগঠনটি। এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সাংগঠনিক সম্পাদক শুভসহ অন্যান্য নেতারা ।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়কে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে কাগজে-কলমে রাজনীতিমুক্ত ক্যাম্পাস হিসেবে বলা হয়ে আসলেও এই ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি বেশ সক্রিয়। ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের কার্যক্রম বেশ জোরেসোরেই চলছে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে। এদিকে দেশের অন্য একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দল বাংলাদেশে জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) ছাত্রসংগঠন ছাত্রদলের উপস্থিতি ছিল বেশ স্তিমিত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি সচেতন শিক্ষার্থীরা বলছেন, দীর্ঘদিন পর গতকাল রাজনৈতিক কোনো অনুষঙ্গ হতে ছাত্রদলের প্রতিনিধিদের ক্যাম্পাসের আশপাশে আসতে দেখা গেছে।

ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে পোস্টারিং ও রাজনৈতিক কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক আবুল বাশার বলেন, ‘প্রতিষ্ঠবার্ষিকীর পোস্টারিং করা হয়েছে কিন্তু তাতে লাভ কি হয়েছে। ঘণ্টাখানের পরেই খবর ছাত্রলীগের ছেলেরা ওগুলা ছিঁড়ে ফেলেছে। আমরা বরাবরই সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে থেকে সুস্থ ধারার রাজনীতি করতে চেয়েছি, কিন্তু ছাত্রলীগের ছেলেদের জন্য এখন ক্যাম্পাসের সামনে বসে চা খাওয়ার সুযোগটাও আমাদের নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা শীঘ্রই আহ্বায়ক কমিটি দেয়ার মাধ্যমে আবারও ক্যাম্পাসে সরব ও সক্রিয় হওয়ার চেষ্টা করব।’

এদিকে ছাত্রদলের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ অস্বীকার করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রেজাউল ইসলাম মাজেদ বলেন, ‘আমি ক্যাম্পাসে গিয়ে দেখি কারা যেন পোস্টারগুলো ছিড়ে ফেলেছে। আমি এ ব্যাপারে কিছুই জানি না। তবে যারা ছিঁড়েছে তারা কাজটি ভাল করে নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ছবিতে দেখেছি যারা পোস্টারিং করেছে তাদের কারো ছাত্রত্ব নেই। একজন প্রাক্তন শিক্ষার্থীকে দেখেছি। বাকিদের দেখে আমার ছাত্র মনে হয়নি।’