ধুনটে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা গ্রেপ্তার ২


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১, ৫:০৯ অপরাহ্ন / ৩২৯
ধুনটে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা গ্রেপ্তার ২

ফজ‌লে রাব্বী মানু, ধুনট (বগুড়া) প্রতি‌নি‌ধিঃ
বগুড়ার ধুনট উপজেলার আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা দয়েছে। এক পক্ষের মামলায় পৌরসভার মেয়র সহ ১৫ জন এবং অপর পক্ষের মামলায় উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলামসহ ১৪ জন নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়েছে। পৃথক দু’টি মামলার এজাহাভুক্ত ২ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো ধুনট উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি পশ্চিম ভরণশাহী গ্রামের ইকবাল হোসেন রিপন (৩০) ও অফিসার পাড়ার আওয়ামী লীগ নেতা শাহাদত হোসেন (৪৫)। রবিবার সকালের দিকে ধুনট থানা থেকে আদালতের মাধ্যমে তাদের বগুড়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে শনিবার রাতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে নিজ নিজ বাড়ি থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।    

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা পরিষদে বরাদ্দকৃত সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পের বিভাজন নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ রয়েছে। এ বিষয়টি সমাধানের জন্য শনিবার সকাল ১১টার দিকে উপজেলা পরিষদের হলরুমে বৈঠকের প্রস্তুতি চলছিল। এসময় উপজেলা পরিষদ এলাকায় আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের নেতাকর্মীরা জমায়েত হয়। সেখানে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে পুলিশ সহ উভয় পক্ষের অন্তত ২৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

এ ঘটনায় শনিবার রাতে একপক্ষে উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক বাদি হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। ওই মামলায় উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলামসহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ্যসহ অজ্ঞাত আরো ৫০-৬০ জনকে আসামী করা হয়েছে। অপরপক্ষে উপজেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ হারুন বাবু বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে। ওই মামলা ধুনট পৌরসভার মেয়র এজিএম বাদশাহ সহ ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৩০-৪০ জনকে আসামী করা হয়েছে।    

ধুনট থানার অফিসার ইনাচর্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, পৃথক দু’টি মামলার আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।এলাকার পরিবেশ শান্ত রাখ‌তে শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।