ধুনটে ৪ নেতাকে বহিস্কার চেষ্টা বিক্ষুব্ধ নারী সমর্থকদের ঝাড়ু মিছিল বুধবার হরতাল


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১৬, ২০২১, ৬:৪১ অপরাহ্ন / ৩৫৬
ধুনটে ৪ নেতাকে বহিস্কার চেষ্টা বিক্ষুব্ধ নারী সমর্থকদের ঝাড়ু মিছিল বুধবার হরতাল

ফজলে রাব্বী মানু, ধুনট (বগুড়া) প্রতিনি‌ধিঃ

বগুড়ার ধুনট পৌর এলাকায় বুধবার সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেওয়া হয়েছে। ধুনট পৌরসভার মেয়র এজিএম বাদশাহ’র বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে এ হরতাল আহবান করা হয়েছে। অপরদিকে আওয়ামী লীগের ৪ নেতাকে বহিস্কার চেষ্টার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ নারী সমর্থকদের ঝাড়ু মিছিল হয়েছে।

জানা যায়, গত শনিবার ধুনট উপজেলা পরিষদ সড়কে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় থানায় দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করেছেন। এরমধ্যে একটি মামলায় ধুনট পৌরসভার মেয়র এজিএম বাদশাহ্ কে প্রধান আসামী করা হয়েছে। মেয়র সমর্থকরা দাবী করছেন, ঘটনার সময় মেয়র অসুস্থ্য ও চিকিৎসার কাজে বগুড়ায় ছিলেন। ঘটনাটি সরকারি বরাদ্দের ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে ঘটেছে। বিগত পৌরসভা নির্বাচনে এজিএম বাদশাহ্ এর কাছে পরাজিত হয়ে নৌকার প্রার্থী ষড়যন্ত্রমুলক মেয়রকে মামলায় আসামী করেছেন। মামলাটি প্রত্যাহারের দাবীতে মেয়র সমর্থকরা বুধবার পৌর এলাকায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল আহবান করেছেন। হরতালের পক্ষে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শহরে মাইকে প্রচারণা চালানো হয়। প্রচারকালে জরুরী সেবা ব্যাতিত সকল ব্যবসা ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং যানবহন বন্ধের রাখার আহবান জানানো হয়। এছাড়া পৌরবাসীকে শান্তিপূর্ণ হরতাল পালনের অনুরোধ করা হয়েছে।

অপরদিকে আওয়ামী লীগ নেতা আসিফ ইকবাল সনি, শফিকুল ইসলাম, মহসিন আলম ও ইমরুল কাদের সেলিমকে বহিস্কার চেষ্টার প্রতিবাদে শহরে ঝাড়ু মিছিল হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় তাদের বিক্ষুব্ধ কর্মী-সমর্থক ও নারীদের ঝাড়ু মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। ধুনট উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাইদুল ইসলাম রনি বলেন, আওয়ামী লীগ নেতা আসিফ ইকবাল সনি, শফিকুল ইসলাম, মহসিন আলম ও ইমরুল কাদের সেলিম ধুনট পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের বিজয়ের লক্ষ্যে দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করে কাজ করেছেন। কিন্তু নির্বাচন শেষে তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে ষড়যন্ত্রমুলক বহিস্কার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। একারনে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মী ও নির্বাচনে নৌকা পক্ষে কাজ করা নারী সমর্থকরা ঝাড়ু মিছিল করেছে।

বগুড়া জেলা পরিষদের সদস্য এএফএম ফজলুল হক বলেন, আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় একটি মামলায় ধুনট পৌরসভার মেয়র এজিএম বাদশাহকে আসামী করা হয়েছে। ঘটনার সাথে তাঁর কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। পৌরসভা নির্বাচনে তাঁর কাছে পরাজিত হওয়ার কারনে এখন মেয়রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। এজন্য মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে বুধবার পৌর এলাকায় সকাল সন্ধ্যা হরতাল আহতান করা হয়েছে। হরতালে জরুরী সেবা গুলো আওতামুক্ত থাকবে। তিনি পৌরবাসীকে শান্তিপূর্ণ হরতাল পালনের আহবান জানান।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, পৌর মেয়রের পক্ষ থেকে পৌর এলাকায় বুধবার হরতাল ডাকা হয়েছে। তবে হরতালের নামে মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাপন ব্যহত করার সুযোগ নেই। এজন্য পুলিশ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।