পেঁয়াজের দাম বাড়ার আশঙ্কা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের


প্রকাশের সময় : মে ১১, ২০২২, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন / ৭৭
পেঁয়াজের দাম বাড়ার আশঙ্কা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের

দেশীয় কৃষকের স্বার্থ বিবেচনা করে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রেখেছে সরকার। তবে আমদানি বন্ধ থাকায় খুচরা বাজারে এর দাম বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা।

মঙ্গলবার (১০ মে) রাজধানীর মিরপুর ১১, ১২ নম্বর এলাকা ও কালশী বাজার ঘুরে এমন তথ্য জানা যায়।

মিরপুর ১১ নম্বর এলাকার পাটোয়ারী জেনারেল স্টোরের মালিক আবু বক্কর সিদ্দিক পিন্টু বলেন, পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে কিনা আমি জানি না। পেঁয়াজের কেজি ৩৫ টাকায় বিক্রি করছি। আমদানি বন্ধ হলেও এখনও কাঁচাবাজারে এর প্রভাব পড়েনি। ২-১ দিনের মধ্যেই প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তখন পেঁয়াজের দাম চাহিদা অনুযায়ী বেড়ে যাবে।

মিরপুর ১২ নম্বর এলাকার আল-মদিনা জেনারেল স্টোরের মালিক মো. রহিম বলেন, ৩৫ টাকায় পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে। আমি দুইদিন আগে দোকানের জন্য ১৭ কেজি পেঁয়াজ কিনেছিলাম। আমি আগে কিনেছি বলেই কম দামে বিক্রি করছি। অন্যরা পেঁয়াজের দাম বাড়িয়ে কেজি ৪০ টাকায় বিক্রি করছে। আবারও পেঁয়াজের দাম বাড়তে পারে।

কালশী বাজারের খুচরা পেঁয়াজ বিক্রেতা মো. জামাল বাংলানিউজকে বলেন, দোকানে বিক্রির জন্য দুই দিন আগে ভালো মানের পেঁয়াজ কিনেছিলাম। সেসব পেঁয়াজ কেজি ৪০ টাকায় বিক্রি করছি। অন্যরা বিক্রি করছে ৩৫ টাকায়। যদি পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ থাকে তাহলে বেশি দামে কিনতে হবে। তখন বাধ্য হয়ে বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করতে হবে।

এর আগে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম ৪০ টাকার উপরে উঠলে আবারও ভারত থেকে ইমপোর্ট পারমিটের (আইপি) অনুমোদন দেওয়া হবে বলে জানান  বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও ডিজিটাল কমার্স সেলের প্রধান এএইচএম সফিকুজ্জামান। একইসঙ্গে আইপি বন্ধে পেঁয়াজের দামে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে জানান তিনি।