ববি শিক্ষার্থীদের উপর নৃশংস হামলার নিন্দা জানিয়ে যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন ২৬ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবৃন্দ


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১৮, ২০২১, ৮:০৩ অপরাহ্ন / ২৪১
ববি শিক্ষার্থীদের উপর নৃশংস হামলার নিন্দা জানিয়ে যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন ২৬ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবৃন্দ

ক্যাম্পাস ডেস্কঃ

মধ্য রাতে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) শিক্ষার্থীদের উপরে হামলার নিন্দা জানিয়ে ২৬ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবৃন্দ এক যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন।

বিবৃতিতে শিক্ষার্থীবৃন্দ বলেন “রাতের অন্ধকারে শিক্ষার্থীদের মেসে গিয়ে খুঁজে খুজে আক্রমণ করা হয়েছে। দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালানো হয়েছে। পত্রিকা মারফত আমরা জানতে পারি প্রায় ১৩ জন গুরুতরভাবে আহত হয়েছে। মূলত ১৬ ফেব্রুয়ারি দুপুরে বরিশাল নগরের রূপতলী এলাকায় বিআরটিসি বাসের স্টাফদের সাথে ববি’র দুই শিক্ষার্থীর কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা স্টাফদের কর্তৃক হামলার শিকার হয়। এরপর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ণভাবে রাস্তা অবরোধ করে দোষীদের শাস্তি দাবি করে। অবরোধের এক পর্যায়ে এলাকার আওয়ামীলীগ ও শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীদের সাথে শিক্ষার্থীদের বাক-বিতন্ডা হয়। এরই জের ধরে রাতে এলাকার আওয়ামীলীগ ও শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা গুন্ডাদের দিয়ে শিক্ষার্থীদের মেসে হামলা চালায়।

হামলার এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করলেও পুলিশের উপস্থিতিতে আওয়ামীলীগ ও শ্রমিক লীগের সন্ত্রাসীরা দফায় দফায় হামলা চালায়। এমনকি শিক্ষার্থীরা ভিসির বাসভবনের সামনে জড়ো হওয়ার চেষ্টা করলে সেখানেও হামলা চালানো হয়। পরিষ্কারভাবে বোঝা যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। শুধু বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ই নয়, দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়েও একই অবস্থা। এলাকার রাজনৈতিক দুর্বৃত্তদের হাতে শিক্ষার্থীরা জিম্মি হয়ে আছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনগুলোর নিক্রিয়তা সেটার জন্য দায়ী।”

শিক্ষার্থীবৃন্দ আরো বলেন “রাতের বর্বর হামলার পরে শিক্ষার্থীরা ঢাকা-পটুয়াখালি মহাসড়ক অবরোধ করে আসামীদের গ্রেফতারের দাবি জানায়। প্রশাসন ৪৮ ঘন্টার মধ্যে দোষীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা অবরোধ বন্ধ করে। আমরা দাবী জানাচ্ছি খুবই দ্রুত দোষীদের গ্রেফতার ও বিচার করার। একই সাথে সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা জোরদার করার দাবি জানাচ্ছি ক্যাম্পাস গুলোতে শিক্ষার্থীদের গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।”

বিবৃতিতে একাত্মতা পোষণকারী শিক্ষার্থীরা হলেন,সুজয় বিশ্বাস শুভ (ববি),আরাফাত সাদ ( ঢাবি),রকিবুল রনি (জাবি),ইমামুল ইসলাম সোহান (খুবি),মইনুল হাসান (বুয়েট), সাচিংমং মারমা (চবি),আজিজুল হক মানিক (রাবি),রেম্রাচাই মারমা (রাবিপ্রবি),উজ্জ্বল মন্ডল (বশেমুরবিপ্রবি)মুহম্মদ নাহিন রহমান ( কুয়েট), জিকে সাদিক (ইবি),হাবিবুর রহমান (যবিপ্রবি),শতাব্দীকা ঊর্মি (জবি),সঞ্জয় চন্দ্র রায় (বাকৃবি),শাহরিয়ার জামান (বুটেক্স), লাবিব ওয়াহিদ (চুয়েট),উশৈহ্লা মারমা (কুবি),সামিউল এহসান শাফিন (শাবিপ্রবি),মাহমুদুল হাসান আরিফ (নোবিপ্রবি),পল্লব কান্তি পাল (রুয়েট)বর্ষা রায় চৌধুরী (ককানইবি),আল আমিন শেখ (বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়),মাহফুজুল ইসলাম বকুল ( বেরোবি),রোবায়েত হোসেন রাব্বি ( হাবিপ্রবি),ইন্দ্রজিৎ বড়ুয়া মুৎসুদ্দি (নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়)