বশেমুরবিপ্রবিতে প্রথমবারের মতো শিক্ষক হলেন দুই শিক্ষার্থী


প্রকাশের সময় : জুন ৮, ২০২২, ৩:৩৮ অপরাহ্ন / ৪০
বশেমুরবিপ্রবিতে প্রথমবারের মতো শিক্ষক হলেন দুই শিক্ষার্থী

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রথম দুইজন শিক্ষার্থীকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে এটাই প্রথম কোন শিক্ষার্থী নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হলেন।

নতুন শিক্ষক হিসেবে যে দুই শিক্ষার্থী নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন তারা হলেন- মঈনুল ইসলাম শাওন,ইংরেজি বিভাগ ২০১১-১২ সেশন এবং তন্বী সাহা,বাংলা বিভাগ ২০১৪-১৫ সেশন। শিক্ষার্থী থেকে নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হতে পেরে গর্বিত তারা।

সকল শিক্ষার্থীদের প্রাণের দাবী ছিলো এটি। এর আগে বিভিন্ন আন্দোলনে বিভিন্ন দফার মধ্যে শিক্ষক নিয়োগের বিষয়টিও অন্তর্ভুক্ত ছিলো। তৎকালীন উপাচার্য প্রফেসর ড. খন্দকার নাসির উদ্দিন বলেছিলেন -দেশের বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শিক্ষক হওয়ার মতো দক্ষ উপযুক্ত হয়নি এখনো। তাই তিনি নিয়োগের বিষয়ে বারবার এড়িয়ে গেছেন। কিন্তু বর্তমান উপাচার্য বিষয়টিকে ইতিবাচক ভাবে নেওয়ায় উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ সেশনের কৃষি বিভাগের শিক্ষার্থী ‘সোহেল বলেন’- নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা শিক্ষক হওয়ায় আমরা খুবই গর্বিত। এতে শিক্ষার্থীদের মাঝে আরো প্রতিযোগিতা বেড়ে যাবে,এবং ভালো সিজিপিএ অর্জন করে শিক্ষক হওয়ার আত্মবিশ্বাস তৈরী হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য ড. এ কিউ এম মাহবুব বিভিন্ন সময় বিভিন্ন আলোচনায় নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে শিক্ষক নিয়োগ দেবেন বলে আশ্বাস দিয়ে এসেছিলেন। যা আজ বাস্তবে রূপ নিয়েছে। তিনি প্রায়ই বলতেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী যদি যোগ্য প্রার্থী হয়, অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতিযোগিতা করে যদি টিকে থাকতে পারে তাহলে অবশ্যই তাদেরকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, সিজিপিএ ৪ এর মধ্যে ৪ পেলেও প্রার্থী শিক্ষক হিসেবে যোগ্য নাও হতে পারেন। কারণ অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের স্বজনপ্রীতির মাধ্যমে স্টুডেন্টদের বেশি মার্ক দিয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা এবং ভাইভার মাধ্যমে তার মেধা যাচাই করে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা হবে।