বশেমুরবিপ্রবিতে বিশ্ব মানবসংহতি দিবস-২০২০ সেমিনার অনুষ্ঠিত


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২১, ২০২০, ৭:১৬ অপরাহ্ন / ১০৯
বশেমুরবিপ্রবিতে বিশ্ব মানবসংহতি দিবস-২০২০ সেমিনার অনুষ্ঠিত

ক্যাম্পাস ডেস্কঃ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) বিশ্ব মানবসংহতি দিবস-২০২০ উপলক্ষে “স্টুডেন্টস এগেইনস্ট ভায়োলেন্স এভরিহোয়ার (সেইভ)” এর আয়োজনে অনলাইন জুম অ্যাপের মাধ্যমে একটি ভার্চুয়াল সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

গতকাল ২০ডিসেম্বর (রবিবার) সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টা অবধি অনুষ্ঠানটি প্রচারিত হয়। অনুষ্ঠানটিতে দেশের ১৫ টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রায় ২২৪ জন শিক্ষক এবং শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। সেমিনারটিতে বশেমুরবিপ্রবি সেইভ এর কো-প্রেসিডেন্ট শামিমা ইয়াসমিন তরীর সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় সেইভ এর মডারেটর এমদাদুল হক। এবং প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপাচার্য প্রফেসর ড. এ. কিউ. এম. মাহবুব।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন ফর ইলেকট্রোরাল সিস্টেম এর বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর সিলজিয়া প্যাসিলিনা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আইনুল ইসলাম এবং বশেমুরবিপ্রবি রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সম্মানিত সভাপতি ড. হাসিবুর রহমান। সেমিনারটি প্রধান তিনটি ধাপে অনুষ্ঠিত হলেও প্রথম ধাপে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখার পর তরুণদের মাঝে সঠিক শিক্ষা প্রদান এবং অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে বক্তব্য রাখেন সেমিনারের প্রধান অতিথি এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ. কিউ. এম. মাহবুব। তিনি বলেন, তরুণদের সঠিক শিক্ষা প্রদান করতে না পারলে তারা বিপথগামী হবে। তাই, তরুণদের সঠিক দিকনির্দেশনা দিতে হবে। তরুণদের সঠিক পথে রাখার জন্য তিনি প্রথমত পরিবার, সমাজ এবং রাষ্ট্রকে দায়িত্ব নিতে বলেন। তিনি আরও বলেন, তরুণদের এগিয়ে আসার মাধ্যমেই অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-র স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়া সম্ভব হবে। সেমনারটির দ্বিতীয় ধাপে “তরুণদের মধ্যে সংহতিই পারে সাম্প্রদায়িকতা মুক্ত বাংলাদেশ গড়তে” শীর্ষক বিষয়ে একটি বিতর্ক প্রতিযোগীতা আয়োজন করা হয়। উক্ত বিষয়টির ‘পক্ষে’ অংশগ্রহণ করেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তাহমিনা আক্তার নুপুর, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাহতাব উদ্দীন এবং কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের হায়াতি জান্নাত। এবং ‘বিপক্ষে’ অংশগ্রহণ করেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাউদা জামান রিশ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আদিয়া আফরিন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শফিকুল আলম। সেমিনারটির তৃতীয় ধাপে “ভয়েজ অব ইয়ুথ অন হিউম্যান সলিডারিটি” শীর্ষক লেখা প্রতিযোগতায় সেইভ এর বশেমুরবিপ্রবি ও চবি চ্যাপ্টার থেকে বাছইকৃত ছয় জন প্রতিযোগী সংক্ষিপ্ত আকারে তাদের লেখনী উপস্থাপন করেন এবং সবশেষে দুই চ্যাপ্টারে পৃথকভাবে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের নাম ঘোষনা করা হয়। উক্ত লেখা প্রতিযোগীতায় সেইভ চবি চ্যাপ্টারে পর্যায়ক্রমে জান্নাতুল ফেরদৌস সায়মা, সায়েদ মোঃ জাহিদুল ইসলাম এবং জয়িতা বড়ুয়া প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় নির্বাচিত হন। এছাড়া সেইভ বশেমুরবিপ্রবি চ্যাপ্টার থেকে পর্যায়ক্রমে সাফায়েত হোসেন তোহান, সুমাইয়া আফনান নাহিন, এবং যুথি সাহা প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় নির্বাচিত হন।