বিভাগ একীভূতকরণের বিপক্ষে ইইই শিক্ষার্থীদের স্মারকলিপি


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ৭, ২০২০, ৬:৫৪ অপরাহ্ন / ২৫১
বিভাগ একীভূতকরণের বিপক্ষে ইইই শিক্ষার্থীদের স্মারকলিপি

ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইটিই) বিভাগকে, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের (ইইই) সাথে একীভূতকরণের স্বপক্ষে মত দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ. কিউ. এম. মাহবুব। 

এদিকে, উপাচার্যের মতামতের প্রতিবাদ জানিয়ে মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. নূরউদ্দিন আহমেদ বরাবর স্মারকলিপি জমা দিয়েছে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা। 

স্মারকলিপিতে শিক্ষার্থীরা ইটিই এবং ইইই বিভাগ একীভূতকরণের প্রস্তাবকে অনাকাঙ্ক্ষিত, পক্ষপাতদুষ্ট এবং অযৌক্তিক হিসেবে উল্লেখ করেছেন। স্মারকলিপি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে রেজিস্ট্রার দপ্তর সূত্র। 

সোমবার (০৪ অক্টোবর) রাতে ফেসবুক  লাইভে উপাচার্য বলেন, ‘ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীদের ইইই সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। সমস্যাটি রিজেন্ট বোর্ডের সভায় সমাধান হবে বলে আশা করছি।’

এ বিষয়ে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমান তামিম বলেন, ‘ইটিই এর কর্মক্ষেত্র অপ্রতুল এই কথা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। বর্তমানে ইটিই ইঞ্জিনিয়ারদের অভাব অনেকটাই সুস্পষ্ট। তারা যেনো নিজেদের দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে মনযোগী হয়।’

আরেক শিক্ষার্থী ইইই বিভাগের চূড়ান্ত বর্ষের মফিজুর রহমান বলেন, ‘সিলেবাসে যথেষ্ট মিল থাকতেই পারে তাই বলে এমন নয় যে, চাকরির পরিসর ক্ষীণ বলে একটি ডিপার্টমেন্টকে অন্য একটি রানিং ডিপার্টমেন্টে রুপান্তর করে দিতে হবে! আন্দোলন করেই যদি ডিপার্টমেন্ট পরিবর্তন করা যায় তবে ভর্তি পরীক্ষায় সাবজেক্ট চয়েস দেওয়ার প্রথা ভিত্তিহীন!’

তবে ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের এমন মনোভাবকে স্বাগত জানিয়েছেন। ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মুরসালিন মিঠু  বলেন, ‘বিভাগ একীভূতকরণের এমন নজীর সারা পৃথিবীতে আছে। বাংলাদেশেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাপ্লাইড ফিজিক্সকে ইইই বিভাগে রূপান্তর করা হয়েছে। উপাচার্য আমাদের দাবীটা আমলে নিয়ে যৌক্তিক মনোভব পোষণ করছেন, এজন্য আমরা তার প্রতি কৃতজ্ঞ।’

ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা বলছে, দুটি বিভাগের কোর্সগুলো অন্তত ৮০% মিল রয়েছে।  ইইই শিক্ষার্থীরা ইটিই নির্ভর সীমিত কিছু চাকরিতে আবেদনের সুযোগ পান কিন্তু ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা কোর্স একই থাকা সত্বেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ইইই নির্ভর চাকরিতে আবেদনের সুযোগ পায় না। 

প্রসঙ্গত, ইটিই গ্রাজুয়েটদের কর্মক্ষেত্রের অপ্রতুলতা ও চাকরির আবেদনের বৈষম্যের বিষয়টি উল্লেখ করে ইটিই বিভাগকে ইইই এর সাথে একীভূতকরণের দাবিতে ২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলন শুরু করেন বশেমুরবিপ্রবির ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা।