বেরোবিতে জাতীয় পতাকা বিকৃতির প্রাথমিক সত্যতা প্রমাণ পাওয়া গেছে


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২৩, ২০২০, ৩:৩১ অপরাহ্ন / ৮০
বেরোবিতে জাতীয় পতাকা বিকৃতির প্রাথমিক সত্যতা প্রমাণ পাওয়া গেছে

জেলা প্রতিনিধিঃ


মহান বিজয় দিবসে রংপুর রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে কয়েকজন শিক্ষক কর্তৃক জাতীয় পতাকা বিকৃত করে ফটোসেশন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করার ঘটনায় জেলা প্রশাসন গঠিত তদন্ত কমিটি ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ সহ এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে উপাচার্যের কাছে পাঠানোো হয়েছে।
রংপুর জেলা প্রশাসক হাসিব আহসান জানিয়েছেন , জাতীয় পতাকা বিকৃতির ঘটনায় রংপুর জেলা প্রশাসন গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট গোলাম রব্বানী মঙ্গলবার রাতে তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন।
তদন্ত প্রতিবেদনে জাতীয় পতাকা বিকৃতির প্রাথমিক সত্যতা প্রমাণ পাওয়া গেছে। বিশ্ববিদ্যালয় যেহেতু স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, সেকারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশসহ তদন্ত প্রতিবেদনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে পাঠানো হয়েছে। তিনি এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।
গত বৃহস্পতিবার গঠন করা ওই কমিটির অন্য সদস্যরাহলেন মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সদরুল আলম দুলু এবং মেট্রোপলিটনপুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার জিন্নাহ আল মামুন।
এদিকে এ ঘটনার সাতদিন পর ঢাকাস্থ বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসে এক সিন্ডিকেট সভায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে এতে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ডক্টর নাজমুল ইসলাম কে আহ্বায়ক প্রক্টর আতিউর রহমানকে সদস্য সচিব এবং একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য সুচিতা সুচিত্রা শারমিন কে সদস্য করা হয়েছে।
বিজয় দিবসের দিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক একটি বিকৃত জাতীয় পতাকা নিয়ে ফটোশেসন করে তা ফেসবুকে দেয়ার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে ক্যাম্পাস ও পার্কের মোড়ে বিক্ষোভ সমাবেশ, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন হচ্ছে। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক ও একজন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা তাজহাট থানায় দুটি এজাহার করেছেন।
এর আগে রোববার রংপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শওকত আলী এ দুটি তদন্ত করে ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।