মুক্তি চাই-মোঃ ফেরদাউস


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২৭, ২০২০, ৭:৫২ অপরাহ্ন / ১৯৫
মুক্তি চাই-মোঃ ফেরদাউস

আর কতো কাল দেখবো বলো

স্বৈরাচারীর চাঁড়াল খানা।
ভূধরে আজ ছেয়ে গ্যাছে
অত্যাচারীর কসাইখানা।
ক্ষমতার ওই শক্ত দেয়াল
ভাংছে না তা গড়ছে তাঁরা।
মিথ্যাচারীর পোক্ত কথায়
রথ্যা ভূমে মানুষ মারা।
চলবে কতো দেখবো আরো
রক্ত চুষি পশু কারা?
শান্তি দিকে দেখবো না কী?
অশান্তির এই বালাখানা।
লক্ষ কোটি টাকা কোথা
পাইনা খুঁজে নিচ্ছে কারা?
দেশ বিদেশে গড়ছে তাঁরা
শত হাজার প্রাচীর ভারা।
রণাঙ্গনের সৈন্য যারা
নেই যে ঈমান হচ্ছে হারা।
রক্ত যে আজ তীব্র শীতল
মানুষরূপী ওই মূর্তি যারা।
মা’গো তুমি অশ্রুসক্ত
পশুদের ওই মৃগেন্দ্র থাবায়। চেয়ারম্যানের চেয়ারগুলো
পাথর হয়ে পাষাণ ওরা।
ভিনদেশি ও দালাল তোরা
দেশান্তরে চক্র করে মন্ত্র খুঁজে।
রাক্ষসী ওই মাকে খাবে রাত্রি ভোজে।

রাজ পথে আজ নেই যে মশাল
জব্দ করে রুক্ষ ভাষা।
লাঙ্গল নিয়ে মাঠে গেলে হয় না চাষা। স্বাধীন চিত্তে ঘুরবো এবার
দেশ হতে ওই দেশান্তরে।
কে যাবি আয় সঙ্গেতে আজ
মৃত্যু শিখা জয় করিতে।
তরবারি তাই সঙ্গেতে নেও
দানব রাজার মিথ্যাচারি বলিদিতে।


জয় মা বলে ধ্বনি করে,
রাজ্যে তাহার কুকুর পোষে,
কুকুর যে ওই মানুষ বেটা।
অন্তরেতে বক্র রেখে
সাধুর বেশ রাজ্যে ঘুরে,
রাজ্য নিয়ে পুতুল খেলা
করছে দ্যাখো মন্ত্রী গোটা।
রাজ্যে আমি শান্তি যে চাই
ধ্বংস করে খুনের বাঁশি।
রাজ্যে আমার জ্বলুক তবে
সাত রঙের-ই আলোক রাশি।
দাঁড়ি রাখে তাসবীহ গুনে
মসজিদে যায় নামাজ পড়ে।
ভণ্ডামি তার কেউ জানেনা
ঘুষের টাকায় পকেট ভরে।
পকেট যে তার দোযখ খানা
পাপ জেনেও সে ঈমান হারা।
কোথায় তোমার মুসলমানি
নেই ভেদাভেদ তাদের মাঝে,
ধর্ম যাদের ওষ্ঠ ভাঁজে।
রাজ্যে কেনো ধর্ষণ বাজী?
বাপটা ওদের ভিষণ পাজি।
ছিঃছিঃ এসব কেনো রাজ্যে আমার?
নেই যে বিচার তার ফলাফল।
বিচার বলো পাবো কোথায়?
টাকায় যে সব ধুলোয় মিশায়।
পিশবি তব বুঝবি তখন,
পড়বি যখন মাটির থাবায়।
বলছি তাই আজ সত্যের এ ধাঁচ
জীবন বাজির বাঁচা মরায়।
মুক্তি আমি চাই যে হে ভাই
নৈরাজ্যের দ্বার বন্ধ করে
দেখবে তবে রাজ্যে আমার
শান্তি প্রিয় মানুষ গড়ে।